আপনি প্রচুর টাকা কমাতে চান self-made মিলিওনেয়ার হতে চান এবং সফল হতে চান তবে আচার্য চাণক্যের এই নীতিটা সব সময় মনে রাখুন আচার্য চানক্য বলছেন সব সময় এই পাঁচটি প্রশ্ন নিজেকে করুন কি সেই পাঁচটি প্রশ্ন যা আপনাকে কোটিপতি করে তুলতে পারে আপনাকে চূড়ান্ত সফল করে তুলতে পারে আজকে এই তে সেটাই বলবো আচার্য চানক্য বলছেন যে পরিবারে পুত্র থাকে না সেই পরিবারকে 0 হিসেবে মানা হয় যে ব্যক্তির কোন বন্ধু বান্ধব থাকে না তার কাছে চারপাশ অথবা সারা সংসার শূন্য হয়ে পড়ে মূর্খ ব্যক্তির হৃদয় শূন্য হয় আর দরিদ্র ব্যক্তির কাছে তো সব কিছু শুরু হয়নি হ্যাঁ আপনি ঠিকই শুনেছেন দরিদ্র ব্যক্তির কাছে সবকিছু শূন্য হয় বিল গেটস বলেছেন যদি আপনি দরিদ্র হয়ে জন্মগ্রহণ করেন তবে এটা আপনার দোষ নয় কিন্তু আপনি যদি দরিদ্র হয়ে মারা যান তবে সেটা আপনার দোষ আমাদের সমাজের দরিদ্র মানুষদের কেউ সম্মান করে না তাই প্রত্যেক মানুষের উচিত ধনী হবার চেষ্টা করা এটলিস্ট এমন পরিমাণ টাকা আয় করা উচিত যাতে আপনি ও আপনার পরিবার ভালোভাবে চলতে পারেন আপনার স্বপ্ন পূরণ করতে পারেন তাহলে চলুন দেখে নিই

এই পাঁচটি প্রশ্ন কি কি সত্যিই ধ্বংস ওয়েলকাম ব্যাক টু কমেন্ট করে জানাবেন এতে আমার কনফিডেন্স বারের প্রথম প্রশ্ন যেটা আচার্য চাণক্য নিজেকে করতে বলছেন তা হল আমার সময় কেমন চলছে অর্থাৎ আপনাকে আপনার বর্তমান পরিস্থিতির কথা ভাবতে হবে আপনি কি পরিস্থিতিতে আছেন আপনি গরীব হতে পারেন আপনার আর্থিক পরিস্থিতি এখন খুব খারাপ হতে পারে আপনি এখন অসুখ হলো একজন ব্যক্তি হতে পারেন কিন্তু তার মানে এই নয় যে আপনি সারাজীবন গরিব হয়ে থাকবেন থাকবেন আপনার এই বর্তমান সিচুয়েশনের ওপর দাঁড়িয়ে আপনাকে ভাবতে হবে আপনাকে ধনী হতে পৃথিবীর এই বর্তমান পরিস্থিতিতে আমাদের হাতে অনেক অপরচুনিটি আছে যা আগে কখনই ছিল না আপনার মধ্যে যদি স্বপ্ন থাকে ধনী হবার পৃথিবীর কোনো শক্তি নেই আপনাকে আটকাবে এখনই অপরচুনিটির যুগে প্রচুর self-made মিলেনিয়ার তৈরি হচ্ছে যাদের বাবা মার বংশের কোন পার্টি ছিল না এবং তাদের বয়স কম এবং তারা সবাই জিরো থেকে শুরু করেছিলেন মুকেশ

আম্বানির মতে আগামী কুড়ি বছর ইন্ডিয়ার জন্য খুব ইম্পর্টেন্ট সময়ই এই মোমেন্টে অপরচুনিটি আছে তা আগে কখনো কেউ পায়নি এই সময়ে আমরা অনেক বিজনেস খুব সহজে খুলতে পারিনি ক্যারিয়ারের দিকে খুব তাড়াতাড়ি ভালো জায়গায় পৌঁছে যেতে পারে আর ইন্ডিয়াকে এক নম্বরে নিয়ে চলে আসতে পারি টু সিলেট মেডিকেলে প্রথম কন্ডিশনটা হলো ড্রিমস ড্রিমস প্রথমেই আপনাকে ধনী হবার স্বপ্ন দেখাতে হবে আপনি যদি নিজ এটা ভাবেন পৃথিবীর কোন শক্তি নেই আপনাকে ফোন করবে সুতরাং আপনার নিজের বর্তমান পরিস্থিতির কথা ভাবুন আর বর্তমানে প্রচুর অপরচুনিটি আছে ধনী হবার সেখান থেকে আপনার এই পরিস্থিতিতে কোনো অপরচুনিটি আপনি কাজে লাগাতে পারেন তা বলুন যা আপনাকে ধ্বনি ও সফল করে তুলবে আচার্য চাণক্য প্রশ্ন যা তিনি নিজেকে করতে বলছেন তা হল আমার বন্ধু কতজন একটি 5% আপনার শাকসবজি প্রিন্ট করে আপনি আপনার পার্সোনাল প্রফেশনাল লাইফে কেমন কোয়ালিটির রিলেশনশিপ ডেভলপ করছেন আপনি যত মানুষদের জানবেন চিনবেন আর যত মানুষ আপনাকে জানবে চিনবে আপনি যত সাকসেসফুল হবেন তত

তাড়াতাড়ি আপনি এগিয়ে যেতে পারবেন মোটামুটি ভাবে আপনার প্রতি তার টার্নিং পয়েন্টে কেউ না কেউ থাকবে আপনাকে হেল্প করার জন্য নয় তো বাধা দেবার জন্য সাকসেসফুল মানুষরা সবসময় চেষ্টা করে হাই কোয়ালিটির নেটওয়ার্ক তৈরি করতে খুব মেনটেন করতে এটা তাদের একটা হ্যাপি তার সেই মানুষদের থেকে অনেক এগিয়ে থাকলেও সাকসেসফুল হয় যারা বাড়িতে থেকে শুধু টিভি দেখতে পছন্দ করেন আচার্য চানক্য বলছেন সব সময় পাবো আপনার বন্ধু কতজন সুতরাং আপনাকে সাকসেসফুল হতে গেলে আপনার বন্ধু সংখ্যা বাড়াতে হবে নেটওয়ার্ক পাড়াতে হবে আবার মজার বিষয় হলো যাদের সাথে আমরা ওঠাপড়া করি তাই এই আমাদের অ্যাটিটিউড ব্যবহার করেন তাদের মত হয়ে যায় সুতরাং আপনি যদি সাকসেসফুল হতে চান তাহলে পজেটিভ মানুষের সঙ্গে যুক্ত হন যারা আশাবাদী অস্থি এবং দাঁতের লাইফে কোন দল আছে যারা লাইফে এগিয়ে যাচ্ছে এবং একইসঙ্গে নেগেটিভ কম্প্লাইনিং মানুষের থেকে দূরে সরে যায় ছেলেরা সবসময় নতুন বন্ধুত্ব করে তাদের নেটওয়ার্ক পারায় তারা তাদের ইন্ডাস্ট্রিতে বিভিন্ন গ্রুপে জয়েন করে প্রত্যেকটি মিটিং

এটেন্ড করে বিভিন্ন গ্রুপ অ্যাক্টিভেট এর মধ্যে থাকে তারা তাদের বিরুদ্ধে এবং শ্বাসনালী অন্য লোকেদের কাছে উৎপাদন বিজনেস কার্ড দিয়ে দেয় অন্যান্য মানুষদের বিজনেসে অন্য কিছুতে হেল্প করেন যাতে প্রয়োজনে তাদের ওভেল পায় সুতরাং ধ্বনি ও সাকসেসফুল হতে গেলে আপনাকে পজেটিভ বন্ধুসংখ্যা অনবরত বাড়াতে হবে তৃতীয় প্রশ্ন যেটা আচার্য চাণক্য নিজেকে করতে বলছেন তা হলো আমি যেখানে থাকি সেটা কেমন আমরা যেখানে থাকি তা আমাদের উন্নতির জন্য খুব ইম্পর্টেন্ট রোল টু প্লে করে ধরুন আপনি এমন কোন গ্রামে থাকেন যেখানে মোবাইলের নেটওয়ার্কে কাজ করে না তাহলে আপনি পুরো পৃথিবী থেকে বিচ্ছিন্ন সুতরাং কিছু জানার হলে আপনি সহজে গুগলে সার্চ করতে পারবেন না জীবনে উন্নতি করার জন্য যা খুব ইম্পর্টেন্ট একটা বিষয় বা ধরুন আপনি যেখানে থাকেন সেখানে কোন জলপ্রপাতকে নেটে নেই যে বিজনেস করবেন সেখানে কোন কাস্টমার নেই সেখানে ভালো স্কুল কলেজ নেই যেখান থেকে আপনি উন্নতমানের পড়াশোনা করতে পারেন প্লেস মানুষের জীবনে একটা রোল প্লে করে ধরুন আপনার এইরকম কোন জায়গায় বাড়ি যেখানে আপনি যা

করতে চান তার অপরচুনিটি খুব কম তাহলে আপনি কি করবেন আপনার তৎক্ষণাৎ এমন কোন রাজ্যে বা শহরে সেট করে যাওয়া উচিত যেখানে সেইসব অপর্তুনিটি ফর পুরোমাত্রায় আছে এখন একটা বড় প্রশ্ন সেখানে ঘর ভাড়া করে থাকতে হবে আলাদা করে খেতে হবে সবকিছু মিলে বেশ কিছু হাজার টাকা এক্সট্রা খরচ হবে কিন্তু আপনি ভাবুন আপনার যদি এখানে থেকে সাকসেসফুল হওয়ার চান্স যদি বেড়ে যায় তাহলে এই এক্সট্রা খরচা টা সেক্ষেত্রে নগণ্য আপনি যদি একা হয় তাহলে যে জায়গায় আপনি করতে চান সেখানে বা তার কিছুটা আশেপাশে কোন মেস বদ পেইং গেস্ট হিসেবে থাকতে পারেন এতে খুব কম খরচ হবে তাহলে আপনি যদি ধনী ও সাকসেসফুল মানুষ হতে চান তবে আপনাকে এমন কোন বাসস্থান করতে হবে যে সেটা অর্থনীতিতে ভরপুর হবে যেখানে আপনি ভালো ভালো পজেটিভ মানুষ পেয়ে যাবেন বন্ধুত্ব করার জন্য নেটওয়ার্ক জন্য চতুর্থ প্রশ্ন যেটা আচার্য চানক্য আপনাকে করতে বলছেন তা হল আমার আয় ও ব্যয় কত কোটিপতি হতে গেলে self-made মিলনের হতে গেলে এটা ভীষণ ইম্পর্টেন্ট একটা প্রশ্ন যা আপনার নিজেকে সবসময় করা উচিত আমাদের

অধিকাংশ মানুষেরই একটা সমস্যা হলো আমরা কাজ করে মাসের শেষে 4 টাকা পাই তা পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ম্যাক্সিমাম টা উড়ে যায় আর বাকিটা মাসের 15 তারিখ অবধি চলে আর বাকি দিনগুলো চলার মতো পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় এটা হাস্যকর হলেও অনেক মানুষেরই এটা একটা লাইফ স্টাইল হয়ে দাঁড়িয়েছে আর এটাকে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন কোম্পানি তাদেরকে ইনস্ট্যান্ট লোন দিয়ে ব্যবসা দিয়েছে কিন্তু আপনাকে ঠিক হতে গেলে ধনী হতে গেলে আপনার চলার স্টাইল চেঞ্জ করতে হবে আপনি যেটা খেতে এতো ইনকাম করছেন সেই টাকায় সবথেকে বেশি অধিকার একমাত্র আপনার টাকা পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আগে নিজেকে করুন ব্যাক লিস্ট শতাংশ টাকা প্রথমে জড়িয়ে রাখুন আলাদা একাউন্টে এটা আপনি সেদিন পারপাসে রাখলেন টাকা সেভ করাটা খুব কঠিন কাজ তাই এটা হ্যাভ ইট তৈরি করবার জন্য শুরুতে ওয়ান পার্সেন্ট পার্সেন্ট করে পরে 20 শতাংশ পৌঁছাতে পারেন এলিফ্যান্ট বিলিয়নেরা ইনকাম বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন তৈরি করে আবার তারা যে টাকাটা সেন্ড করলো সেটা ইনভেস্ট করে এমন জায়গায় যেখান থেকে তারা ম্যাক্সিমাম রিটেল পাবেন সরিয়ে রাখা টাকা

ইনভেস্ট করবেন তার জন্য আপনাকে স্টাডি করতে হবে ফিনান্সিয়াল কনসালটেন্টের সাহায্য নিতে পারেন মনে রাখবেন সবার জীবনেই খারাপ সময় আসতে পারে তাই টাইপ করাটা একটা অত্যন্ত প্রয়োজনীয় জিনিস আপনার জন্য তাই এটা আজ থেকেই শুরু করুন টাকা পাওয়ার পরে আগে টোয়েন্টি পার্সেন্ট সরিয়ে রাখুন তাহলে সারা মাসে এইট্টি পার্সেন্ট টাকা খরচ হয়ে গেলেও কোন সমস্যা নেই তারপর টোয়েন্টি পার্সেন্ট টাকা ইনভেস্ট করুন ম্যাক্সিমাম পাওয়ার জন্য তাই আচার্য চাণক্য বলছেন আমিও ব্যয় নিয়ে ভাবুন এর মধ্যে একটা ব্যবধান থাকবে এবং এই ব্যবধান এর টাকা ও ইনভেস্ট করতে হবে সুতরাং ব্যয় বেশি হলে আপনাকে আয়ু বাড়াতে হবে এই ব্যবধান বজায় রাখার জন্য পঞ্চম প্রশ্ন আচার্য চানক্য আপনাকে নিজেকে করতে বলছেন তাহলে আমি কে আমার শক্তি কি অর্থাৎ আমি কোন কাজটা করতে সমর্থ আমি কে মানে আপনার উদ্দেশ্য কি আপনি কি করতে পৃথিবীতে এসেছেন আপনার পেশা কি আপনি কি করতে ভালোবাসেন আপনি কোন কাজটা ভালো করে করতে পারবেন সফল এবং মিলেনের তারাই হয় যারা এমন একটি ফিউজ করেন যেখানে তাদের ন্যাশনাল ট্যালেন্ট আছে অর্থাৎ দক্ষতা আছে সেই ফিল্ডে ভালোভাবে কাজ করার এবং খুব সহজেই এই

ন্যাশনাল ট্যালেন্ট দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে কাজ করতে থাকেন এবং সফলতার দিকে এগিয়ে যান আপনি এমন কাজ খুঁজে বার করুন যেটা আপনার করতে খুব ভাল লাগে যেটাতে আপনার দক্ষতা আছে এবং আপনি ধীরে ধীরে আরও দক্ষতা বাড়াতে পারবেন মন প্রাণ দিয়ে সেই কাজটা করতে থাকুন খুব ভালো করে করতে থাকুন যখন আপনি আপনার পছন্দের ও দক্ষতা আছে এরকম কাজ করতে থাকবেন তখন আপনার মতে লাগা তার উত্তেজনাও এনার্জি কাজ করবে আপনার মনে হবে না আপনি একচুয়ালি কাজ করছেন আপনি বড় বড় মিলিয়নিয়ার বিলিয়নিয়ারদের ইন্টারভিউতে বলতে শুনবেন আমি কাজ করি না আসলে তারা তাদের পছন্দের কাজটি করেন যেখানে তাদের মনেই হয়না তারা দীর্ঘ সময় ধরে কাজ করে চলেছেন চাণক্য বলেছেন সর্বদা এই পাঁচটি প্রশ্ন বাবুল হোসেইন করেও কাজ করে এগোতে থাকুন

Reactions

Post a Comment

0 Comments