দেখুন আমাদের দেশগুলোতে আমরা নাইন্টি পার্সেন্ট মানুষ গরিব মানুষ গরিব বলার কারণ হলো




দেখুন আমাদের দেশগুলোতে আমরা নাইন্টি পার্সেন্ট মানুষ গরিব মানুষ গরিব বলার কারণ হলো আজকাল মধ্যবিত্তদের অবস্থাও গরিবদের মতোই এখন এই যে আমরা 925 মানুষের জন্য আমরা সালে কাকে দায়ী করবো আপনি যদি এই কোশ্চেনটা মানুষকে কোন থাকেন আমরা আসলে কেন গরিব তারা কি উত্তর দিবে জানেন সবচেয়ে বেশি মানুষ যেটি বলে সেটি হল সরকারের দোষ এর পরের মানুষগুলো বলবে আমার ভাগ্যের দোষ আর তার সাথে সাথে প্রায় সবাই এটি বলবে সৃষ্টিকর্তা হয়তো বা আমাকে পছন্দই করে না তা না হলে সবাই ধনী হয়ে যাচ্ছে আমি কেন হতে পারছি নাস্বাভাবিকভাবেই এই বিষয়গুলোই আমাদের মাথায় আসবে কিন্তু এই বিষয়গুলোর একটি সত্য নয় তাহলে 70 টি আর এই বিষয়টির অ্যানসার আমি এক লাইনে আপনাদেরকে দিতে পারতাম কিন্তু আপনারা শুনে সেটি মোটেও না আর বিশ্বাস করতেন না তাই আমি একটি ছোট গল্পের মাধ্যমে বিষয়টি আপনাদেরকে

 পুরোপুরি ক্লিয়ার করে একটি শহরের দুটি ফ্যামিলি পাশাপাশি বসবাস করত একজন ছিলেন খুবই গরীব তিনি নদীতে মাছ ধরে কোন মতে সংসার চালাতেন আর তার পাশের প্রতিবেশী ছিল অনেক বেশি ধনী এবং সে এখন আর কোনো কাজ করে না শুধু বসে বসে টাকা ইনকাম করে কিন্তু মজার ব্যাপার হলো কিছু বছর আগেও তারা দুজনই সেম অবস্থা মানে দুই মাস ধরে এই প্রথম ব্যক্তি সবসময় সৃষ্টিকর্তা কে বিচার দিয়েই যাচ্ছে সৃষ্টিকর্তা তাকে কেন পছন্দ করে না তাকে কেন ধ্বনি করে দিচ্ছে না আর এই বারবার কম্পিটিশনে সৃষ্টিকর্তাকে দেখায় যে কেন তাকে ধ্বনি করা হচ্ছে না এবং সেই প্রতিবেশি কেন এত ধনী করে দেয়া হলো কিছু বছর আগে তারা দুজনেই নদীতে মাছ ধরতে তারা যখন প্রথম শুরু করেছিল তারা প্রথম দিন হয়েছিল প্রথম ব্যক্তি সেই মাসকে 1000 টাকা বিক্রি করে এবং সেই টাকা দিয়ে সেই দিনের খাবার কিনে আর মজ মাস্তি করে বাকি অল্প টাকা যা ছিল সেগুলো কে মেরে ফেলে আর দ্বিতীয় ব্যক্তি পায় এবং শেষে 10 হাজার টাকায় বিক্রি করার পর 300 টাকা দিয়ে কোনভাবেই ফ্যামিলি 

ফ্যামিলি ভালো ভাবে চলে না তারপরও কোনভাবে 700 টাকায় এরপর দ্বিতীয় ব্যক্তি কাজ করে 300 টাকা দিয়ে কোনভাবে ফ্যামিলি চালিয়ে চৌদ্দশ টাকা জমিয়ে ফেলেছে ফ্যামিলি করার পর অল্প টাকা যা বেঁচেছিলো তাদের শাস্তি করে এবং দ্বিতীয় ব্যক্তি প্রথম বলেছিল ভাই আপনি টাকা খরচ করে ফেলেন কিছু টাকা জমিয়ে রাখতে পারেন অন্য বিজনেসের জন্য বা অন্য কোন জায়গায় ইনভেস্ট করার জন্য তখন প্রথম ব্যক্তি তাকে উত্তরে বলে আরে ভাই টাকা কামাই অল্প আর জীবনে যদি একটু সাদা লাভ নাই করতে পারি তাহলে টাকা কামিয়ে লাভ কি এভাবে তাদের শেষ হয়ে যায় এবং তার পরের দিন 20 টাকা থেকে 1 হাজার টাকা দিয়ে একটি নতুন আরেকটি লোককে দৈনিক হিসাব রাখে এবং তাকে 400 টাকা দিবে সেই তৃতীয় দিন থেকে দ্বিতীয় ব্যক্তি বৃষ্টি পড়া শুরু করল আর অপরদিকে প্রথম কাজটি করতে থাকলো এক মাস পার হয়ে যায় পাঁচটি এবং প্রতিদিন শুরু করে 50 টি এবং তার নিজের দশটি যার 

বাজার মূল্য ছিল 1000 টাকা এবং সেই সময় তার ফ্যামিলিকে সম্পূর্ণভাবে ফ্যামিলি খরচ করেই তার কোন প্রতিদিন সে 3500 টাকা করে জমা থাকে এভাবে করে দ্বিতীয় ব্যক্তি যে মাছ ধরতে যায় না সে এটিকে একটি বিজনেস এ পরিণত করে ফেলে এবং শেষে বাসায় বসে বসে ঠিক করার চেষ্টা করে এবং কিছু বছর পর দেখা যায় তৃতীয় ব্যক্তি এখন অনেক বেশি ধনী হয়ে গিয়েছে মানে আজকের এই অবস্থানে চলে এসেছে আর প্রথম ব্যক্তি সেই অল্প টাকা জমিয়ে সেই অল্প টাকায় মস্তি করছে আর এখনো শেষে পরিশ্রম করেই যাচ্ছে এখন প্রথম ব্যক্তি ছিল সে যা টাকা আয় করে ফেলত আর ছিল সে তো পরিশ্রম করতেছে কিন্তু সেই পরিশ্রমকে নিজেকে খাটিয়ে কোন সিস্টেমে নতুন কোন উপায় বের করার চেষ্টা সে কখনো করেনি তাই সে যত পরিশ্রমী করুক না কেন কখনই দেখিনি এজন্যই বলা হয়ে থাকে শুধু পরিশ্রম করলে ধনী হওয়া যায় না বুদ্ধি লাগে তাই নিজের টাকা ইনকাম হচ্ছে সেটা যেই হোক না কেন নিজে একটু কষ্ট করে হলেও সেই টাকা থেকে কিছু টাকা সেভ করুন এবং পাশাপাশি নিজেকে নিজের ভিতর চালিয়ে যেতে থাকুন অথবা প্রতিটি ক্ষেত্রেই সেই ব্যক্তি কোনো না কোনো ভাবে কোনো একটি প্রকল্প করেছিল কোন এক সময়ে এবং তার প্রতিফল হিসেবে আজকে তার একটি ভালো 

বিজনেস অথবা তার একটি ভালো প্রপার্টি হয়ে গিয়েছে অথবা তিনি ধনী হয়ে গিয়েছেনথাকলে সেটি দূর হয়ে গিয়েছে এখন আমি চাণক্য নীতি থেকে কিছু কথা আপনাদেরকে বলবো আপনারা প্লিজ সারা জীবন এই কথাগুলোকে মাথায় রাখবেন ফিউচার করা উচিত তা না হলে ধ্বংস হয়ে যাবে দেখুন মানুষ সারাজীবন টাকা ইনকাম করতে পারো না আবার সব সময় টাকা পয়সা ধরা দেয় না তাই যখনই সুযোগ পান তখন এ টাকা বের করে ফেলুন তাহলে যখন বিপদ আসবে তখন আপনার চেয়ে ব্যক্তি আর কেউই হবে না খারাপ বন্ধুর উপর কখনো বিশ্বাস করো না ঠিক একইভাবে ভালো বন্ধু কেউ বিশ্বাস করো না বলে বোঝাতে চেয়েছেন বন্ধু ভালই হোক আর খারাপ হোক যদি তার সাথে আপনার কখনো ঝগড়া হয় অন্য কোন সমস্যা হয় তখন দেখবেন সে আপনার সকল গোপন কথা অন্যকে বলে দিবে তাই বন্ধু যতই হোক না কেন নিজের পার্সোনাল কথাগুলো কাউকে বলা যাবে না কিন্তু পুরুষ মানুষ এবং বেশিরভাগ মহিলারা এই ভুলটি করে থাকেন নিজের লাইফের কারো সাথে শেয়ার করা যাবে না আমরা

 অনেকেই এই ভুলটি করে ফেলি আমরা নিজের বিজনেস হোক না কেন নিজের লাইফের জন্যই হোক না কেন যদি কোন প্ল্যান তৈরি করি তাহলে সেটিকে আবার সবার সাথে শেয়ার করে ফেলি আর এটি সম্পূর্ণ ভুল দেখুন আমরা মানুষ আমাদের ভুল হতেই পারে আমরা আমাদের কাজের হতেই পারি তখন দেখবেন আমাদের কাছের মানুষগুলো থেকে শুরু করে সকলেই আপনার এই দুর্বলতার সুযোগ নিবে তাই নিজেকে না বলে সেটিকে এক্সিকিউট করার চেষ্টা করুন সাকসেস হলে সেটিকে এমনিতেই জানতে পারবে আপনার লাইফে এমন যাওয়া উচিত নয় যে আপনি নতুন কোনো একটি জিনিস শিখে নিন অথবা তার চেয়ে অন্য কিছু শেখেননি অথবা কোন কিছু শিখে নিন খারাপ মানুষের সাথে বন্ধুত্ব করবে সে খুব দ্রুত ধ্বংস হয়ে যাবে দেখবেন জীবনে আমরা না বুঝেই হোক অথবা মেয়ে হোক না কেন আমরা বিভিন্ন মানুষের সাথে বন্ধুত্ব করে ফেলি আর বিশ্বাস করুন একজন খারাপ বন্ধুই যথেষ্ট আপনার জীবনকে ধ্বংস করে দেওয়ার জন্য একজন খারাপ মানুষ এবং একটি বিষধর সাপের মধ্যে পার্থক্য কি জানেন কখনো বলবে না যতক্ষণ পর্যন্ত তাকে কেউ ক্ষতি না করবে কিন্তু একজন খারাপ মানুষ 

সবসময় সকল পরিস্থিতিতে আপনাকে ক্ষতি করার চেষ্টা করেই যাবে আপনি তাকে কোন ক্ষতি করেন আর নাই করেন যখন আসে তখন সমুদ্রের সাথে মিলে সবকিছু ধ্বংস করে দেয় কিন্তু একজন ভালো মানুষ যতই আসুক না কেন তার জীবনে তার রূপ কখনোই বদলাই না মানুষকে বিশ্বাস করতে শিখুন সে কখনো দুঃখ আসবে না যেখানে জ্ঞানীদের কদর করা হয় ওনাদের জন্য খাবারের অভাব হয়না আর স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ভালোবাসার সম্পর্ক বিদ্যমান থাকেএকটি স্বর্ণকে গরম করে কেটে পিটিয়ে অথবা ঘুরছে এটি অরজিনাল কিনা সেটি প্রমাণ করা হয় ঠিক একইভাবে একটি মানুষ খাঁটি কিনা সেটি প্রমাণ করার জন্য তার ক্যারেক্টারিস্টিক তার স্ট্রাগল তার পরিশ্রম এবং তার ব্যবহার দিয়ে বোঝা যায় বেঁচে থাকা উচিত নয় কারণ তবে ধীরে বড় হতে থাকে তাকে অবহেলা না করে এটিকে যতদ্রুত সম্ভব করতে হবে ওই লোকের কাছ থেকে বেঁচে থাকুন যে আপনার সামনে সুন্দর সুন্দর কথা বলে কিন্তু আপনার পেছনে গিয়ে আপনার ক্ষতি করার জন্য লেগেই থাকে এই ধরনের লোক আসলে বিষ মেশানো দুধের মত সাদা কিন্তু ভেতরে রয়েছে বিশ্বলোক আমাদের সমাজে অনেক রয়েছে তাই প্লিজ সাবধান এই হল আজকের এই গল্পে টি ইন্টারেস্টেড 

Reactions

Post a Comment

0 Comments